রাস্তার মাঝে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই নির্মাণ হচ্ছে সড়ক

রাস্তার মাঝে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই নির্মাণ হচ্ছে সড়ক

রাস্তার মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে হেরিং বোন বন্ড (এইচবিবি) সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। সড়কের মধ্যে বৈদ্যুতিক খুঁটি থাকায় চলাচলে প্রতিবন্ধকতাসহ দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

বুধবার (২৭ জুলাই) দুপুরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শাহজাদপুর উপজেলার জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কাদাই বাদলা গ্রাম পর্যন্ত ১৪ শ মিটার নতুন এ রাস্তাটির মুলকান্দি এলাকায় একটি বৈদ্যুতিক খুঁটি রয়েছে। বৈদ্যুতিক খুঁটিটি মাঝখানে রেখেই কাজ সম্পন্ন করেছে কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয়রা জানান, রাস্তাটি হলে আমাদের অনেক উপকার হবে। তবে বৈদ্যুতিক খুঁটি মাঝখানে রেখেই রাস্তার হেরিং বোন করা হয়েছে। এর ফলে এ রাস্তায় ভ্যানগাড়ি বা অন্যান্য যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হবে। বিশেষ করে রাতের অন্ধকারে চলাচলে দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা বেশি রয়েছে।

শাহজাদুপর উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এক সময়ের পায়ে হাঁটার এ রাস্তাটি নতুন করে মাটি ফেলার পর হেরিং বোন বন্ড (এইচবিবি) করা হচ্ছে। প্রায় ৮০ লাখ টাকার এ প্রকল্পটির কাজ এখনো চলছে। এ রাস্তাটি নির্মাণ হলে তিনটি গ্রামের মানুষের যাতায়াতের দুর্ভোগ লাঘব হবে।

জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ বলেন, এলাকার মানুষকে দুর্ভোগ থেকে মুক্তি দিতেই রাস্তাটি নির্মাণ করা হচ্ছে। রাস্তাটি সম্পন্ন হলে এলাকাবাসী দারুণ উপকৃত হবে।

তিনি বলেন, মুলকান্দি এলাকায় রাস্তার কাজ শেষ হলেও মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি রয়েছে। রাস্তার মাঝখানে এ খুঁটি থাকায় স্বাভাবিকভাবেই দুর্ঘটনার শঙ্কা রয়েছে।

উপজেলা প্রকৌশলী আহম্মেদ রফিক বলেন, রাস্তাটি আগে ওইভাবে ব্যবহৃত না হওয়ার বিষয়টি আমাদের নজরে আসেনি। পরে মাটি ভরাট থেকে শুরু করে সম্পূর্ণ নতুন একটি সড়ক বানিয়ে এইচবিবি করা হয়েছে, যার কাজ এখনো চলমান রয়েছে।

তিনি বলেন, দুই বছর আগে রাস্তাটির সার্ভে করা হয়েছিল। এরপর প্রকল্পটির কাজ শুরু হয়। রাস্তার পার্শ্ববর্তীরা পাশে জায়গা না দেওয়ায় মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি রেখেই রাস্তাটি নির্মাণ করার বিষয়টি আমি পরে জেনেছি। খুঁটিটি অপসারণে পদক্ষেপ নিচ্ছি। দ্রুতই খুঁটিটি সরিয়ে নিতে পল্লী বিদ্যুৎকে চিঠি দেওয়া হবে।

 

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.